[X]

৬০ বছরের বৃদ্ধ কর্তৃক ৫ম শ্রেনীর ছাত্রীকে ধর্ষনের অভিযোগ।। বৃদ্ধ ধর্ষক গ্রেফতার


লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে ৫ম শ্রেনীর শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে ছিদ্দিক উল্যাহ নামের ৬০ বছরের এক বৃদ্ধের বিরুদ্ধে। পরে স্থানীয় লোকজন মুমুর্ষ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে কুমিল্লা কুচাতলী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার বিকেলে রামগঞ্জ উপজেলার পানিয়ালা বাজারের পূর্ব পাশে একটি পরিত্যাক্ত ঘরে। খবর পেয়ে রাতে রামগঞ্জ থানার এসআই ফারুখ আহম্মেদ অভিযুক্ত ধর্ষক ছিদ্দিক উল্যাকে আটক করে। এ ঘটনায় মঙ্গলবার সকালে রামগঞ্জ থানায় ধর্ষীতার মা কাজলী বেগম বেগম বাদি হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলায় ওই বৃদ্ধকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। সাত সন্তানের জনক ছিদ্দিক উল্যাহ উপজেলার ভাটরা ইউনিয়নের জয়দেবপুর গ্রামের চন্দনী বাড়ীর বাসিন্দা এবং পানিওয়ালা বাজারের কমার রোডের রিকসা মিকার। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত দীর্ঘ ২৪ ঘন্টায়ও ধর্ষিতার জ্ঞান ফিরেনি।
স্থানীয় সূত্র জানা যায়, সোমবার বিকেল আনুমানিক ৩টায় পানিয়ালা বাজারের নিউ রেনেসা কিন্টার গার্টেনের ৫ম শ্রেনীর ওই ছাত্রীকে বাজারের পূর্বপাশে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের পার্শ্ববর্তী নির্মানাধীন পরিত্যাক্ত একটি নির্জন বাড়ীতে নিয়ে যায়। এর পর লম্পট ছিদ্দিক উল্যাহ ওই ছাত্রীকে জোর পূর্বক অনৈতিক কাজে লিপ্ত হয়। এ সময় পাশের বাড়ীর এক মহিলা ঘটনাটি দেখে ফেলে। পরে স্থানীয় লোকজন ধর্ষিতাকে মুমুর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে রামগঞ্জ ফেমাস হাসপাতালে নিয়ে যায়। ওই হাসপাতাল থেকে রামগঞ্জ সরকারী হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে অন্যত্র নিয়ে যাওয়ার জন্য বলেন। এরপর তাকে দ্রুত কুমিল্লার কুচাতলী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। বর্তমানে ওই হাসপাতালেই ধর্ষিতাকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।
এদিকে এ ঘটনার পর পরই স্থানীয় পানিয়ালা বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি শেখ সুমন ও স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার মোঃ নবী, জয়দেবপুরের মেম্বার মোঃ সোহেলসহ একটি মহল ধর্ষিতার অসহায় পরিবারকে থানায় না পাঠিয়ে সুষ্ঠ মিমাংসার আশ্বাস দেন এবং ঘটনাটি জানাজানি না করার জন্য ধর্ষিতার মা কাজলী বেগমকে মোটা অংকের অর্থের প্রলোভন দেখান।
স্থানীয় ইউপি সদস্য নবী উল্যাহ জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছে ধর্ষক ছিদ্দিক উল্যার কাছ থেকে কিছু টাকা-পয়সা নিয়ে সমাধানের চেষ্টা করেছি। কিন্তু ছিদ্দিক   রাজি না হওয়ায় তাকে পুলিশের হাতে সোপর্দ করে দিয়েছি।
ধর্ষিতার মা কাজলী বেগম জানান, লম্পট ছিদ্দিক আমার মেয়েকে প্রানে মেরে ফেলার চেষ্টা করেছিল। আমি এর বিচার চাই ।
রামগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার ইনচার্জ মোঃ জাফর আহম্মেদ জানান, এ বিষয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা হয়েছে। মূল আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

অফিস ॥ ৯২ আরামবাগ, ক্লাব মার্কেট, মতিঝিল। ই-মেইল ॥ banglaonlinetv24@gmail.com
প্রকাশক মোঃ রাসেল জাতীয় মানবাধিকার ইউনিটি রেজিঃ নং: ঢ_০৮৮৩৭
অনলাইন নিতীমালা মেনে আবেদন কৃত সম্পাদক॥ রাজু আহমেদ অনুমোদিত নাম্বার ০৫/৯৩১৭০২৬৫