[X]

মিষ্টি বউয়ের কঠিন শাসন।-

দিয়ে হাটছি
আর গান গাইছি
ওও আমার দাজ্জাল বৌ,
চিরজঞ্জাল জীবনের,
তোমার্ই জন্যে জীবনটা আমার,
হয়েছে তেজপাতা।---
.
আহ কি শান্তিই না লুকিয়ে রয়েছে গানটার মাঝে।কিন্তু এই
শান্তি আর বেশিক্ষন রইলনা।আমার শান্তির বারোটা বাজিয়ে
বেজে উঠলো ফোনের রিংটোন।ফোনটা পকেট থেকে বের করে
হাতে নিতেই দেখি অশান্তি মানে আমার দাজ্জাল বৌ দিশা ফোন দিয়েছে।মনের মধ্যে এক গ্লাস বিরক্তি আর এক বালতি ভয় নিয়ে কাপা কাপা হাতে ফোনটা রিসিভ করলাম।
.
আমি> হ্যালো ময়না পাখি।
দিশা= কি বললা তুমি?
> ময়না পাখি। তুমি আমার আদরের ময়না পাখি তো।
= চাদু তুমি এক্ষুনি বাড়িতে আসো। তোমার আদর আমি বের
করছি।আমাকে ঐরকম কালো একটা পাখির সাথে তুলনা
করেছো তো। তুমি সুধু আসো। তারপর বুঝবা আদর কাকে বলে।
> না না বাবুনি।আমি আসলে....
= আসলে নকলে সব পরে হবে।আগে তুমি বাড়িতে আসো।১০
মিনিটের মধ্যে আমি তোমাকে বাড়িতে দেখতে চাই।
আমাকে আর কিছু বলার সুযোগ না দিয়েই ফোনটা কেটে দিলো।
.
বাহ! বাহ বাহ।এই না হলে বৌ।যা বলবো সবসময় তার উল্টা
টা বুঝবেই।ভাল কথা কখনো কানে নিবেনা।আদর করে
ময়নাপাখি ডাকলাম তার মধ্যেও দোষ ঠিকি খুজে
নিয়েছে।আসলেই বৌ একটা আজব প্রানী।
.
ওহ পরিচয়টাই তো দেয়া হলোনা।আমি ইমাদ।পড়ালেখা শেষ
করে একটা প্রাইভেট কোম্পানিতে জব করছি।বড় সাধ নিয়ে বিয়ে করেছিলাম।ভেবেছিলাম বিয়ের পর বউের সাথে চুটিয়ে প্রেম করবো।কলেজ লাইফে কোনো মেয়ের সাথে কথাও
বলিনি।সব কথা জমিয়ে রেখেছিলাম নিজের বৌকে বলবো বলে।কে জানতো বৌ আমার এমন হবে।এ জিবনে বোধ হয় আর প্রেম করা হলোনা। তবে আমার বৌএর একটা প্লাস পয়েন্ট আছে।বৌ আমার রাগি হলেও পটানো খুব সহজ।
কিভাবে?সেটা পরে জানতে পারবেন।
.
বৌএর ঝাড়ি খেয়ে বাড়ি ফিরে গেলাম।বাড়ি গিয়ে কলিং বেল
চাপতেই বৌ আমার দরজা খুললো।বৌকে দেখেই আমার
প্রান পাখি যায় যায় অবস্থা।বৌ আমার ঝাটা নিয়ে দাড়িয়ে
আছে।মান ইজ্জত যেটুকো ছিলো আজ মনে হয় তাও যাবে।
= ইমাদ সাহেব।এসেছেন তাহলে।এত তাড়াতাড়ি চলে এলেন?কি বেপার হুম?
>মা মা মানে?
=আপনাকে বাড়ি আসার জন্য যেন কতো মিনিট টাইম
দিয়েছিলাম।মনে আছে?
> দ দ দশ মিনিট।
=হুম দশ মিনিট।ঘড়িটার দিকে তাকিয়ে দেখেন তো কয়
মিনিট হইসে?
ঘড়ির দিকে তাকিয়ে দেখি দশ মিনিট এর জায়গায় আমি বারো
মিনিটে বাড়িতে আসছি।আমি দাত কেলিয়ে বললাম
>১২ মিনিটে আসছি।মাত্র তো ২ মিনিট লেট।
.
=বৌ আমার দাত কিড়মিড় করে বললো পাক্কা ২ মিনিট লেট
আসছো।দুই মিনিট বুঝো?পাক্কা ১২০ সেকেন্ড।এতক্ষন
ধরে রাস্তায় কি করছিলে?নিশ্চই মেয়ে দেখছিলে তাইনা?
>এই না না।কি বলছো তুমি।আমি কোনো মেয়ের দিকে
তাকাইনি।আমি সোজা তোমার কাছে এসেছি।
=তাহলে দুই মিনিট লেট হলো কেন?
>সব কথা কি বাইরে দাড় করিয়েই জিজ্ঞেস করবে?মানুষ
দেখলে কি ভাববে।
=কি ভাববে?
>ভাববে মেয়েটা ভালোনা। নিজের স্বামিকে একটুও সম্মান করেনা।
=ঠিকাছে এসো ভেতরে।
ভিতরে যেতেই বৌ দরজা বন্ধ করে দিয়ে আবার জিজ্ঞেস
করলো
.
=এইবার বলো দুই মিনিট লেট হলো কেন।
আমি এবার কি বলবো খুজে পাচ্ছিনা।হঠাৎ একটা বুদ্ধি এলো।একটু অসুস্থ অসুস্থ ভাব নিয়ে বললাম
>আসলে আমার শরীরটা তেমন ভালোনা। তুমি চিন্তা করবে ভেবে বলিনি।আচ্ছা বাদ দাও এসব নিয়ে তুমি চিন্তা
করোনা। তুমি আমাকে শাষন করতে থাক। তোমার
শাষনের মাঝেও আমি ভালবাসা খুজে পাই। (ব্যাস!
এইটুকুতেই বৌ পটে গেলো।)
=তুমি অসুস্থ আমাকে আগে বলোনি কেনো?তোমাকে এত
কষ্ট দিলাম।এই বলে বৌ আমার হাত ধরে বিছানায় নিয়ে
শুইয়ে দিলো।আর বললো এখানেই শুয়ে থাকো আমি
ডাক্তার ডাকছি।(এই সেরেছেরে!ডাক্তা
র আসলে তো সব ফাস হয়ে যাবে।ধরা পরে যাব।বৌকে আটকাতে হবে)
বৌকে বললাম,
>ডাক্তার ডাকতে হবেনা। তুমি আমাকে ভালোবেসে একটু
আদর করে দাও আমি সুস্থ হয়ে যাব। তোমার ভালোবাসার
থেকে বড় আমার কাছে আর কিছুই নয়।(সিনেমার ডায়লগ
মেরে দিলাম)
বৌ আমার মিস্টি হেসে আমার পাশে বসে মাথায় হাত বুলিয়ে দিতে লাগলো।
.
----আজ মনে হচ্ছে বৌকে
আমরা যতটা দাজ্জাল মনে করি
ততোটা দাজ্জাল তারা আসলে নয়।বউের রাগের পিছনেও লুকিয়ে
থাকে অফুরান ভালোবাসা।
সেই ভালবাসার অনুভতি পেতে চাইলে
অবশ্যই বিয়ে করা উচিত।
দেখবেন একসাথে দিগুন বা
তিনগুন ভালোবাসা পাবার জন্য
একসাথে ২-৩ টা বিয়ে করে বসবেন না যেনো।
তাহলে একুল ওকুল দুকূল্ই যাবে।----

                 -----সমাপ্ত-----

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

অফিস ॥ ৯২ আরামবাগ, ক্লাব মার্কেট, মতিঝিল। ই-মেইল ॥ banglaonlinetv24@gmail.com
প্রকাশক মোঃ রাসেল জাতীয় মানবাধিকার ইউনিটি রেজিঃ নং: ঢ_০৮৮৩৭
অনলাইন নিতীমালা মেনে আবেদন কৃত সম্পাদক॥ রাজু আহমেদ অনুমোদিত নাম্বার ০৫/৯৩১৭০২৬৫