পেট পিঠ দেখানোর স্বাধীনতার জন্যই ছুটছে বলে

[ আধুনিক নারী স্বাধীনতা ]
==================
আজ আধুনিক নারীরা স্বাধীনতার নামে
পেট পিঠ দেখানোর স্বাধীনতার জন্যই ছুটছে বলে
আমার ধারনা। কারন ভেবে দেখলাম পোশাকের
ব্যাপারে পুরুষেরাই অধীক সচেতন কারন তাদের
পেট পিট দেখার চেস্টা করতে হয় আর যদি চেস্টা
করতে যান তাহলে আপনাকে পাগল ছাড়া কিছু
বলবে না। আর আপনার পেট পিঠ তো,,,,,,,,,,,,,,,,

এবার আসুন মসলিম নারী হিসাবে
আমাদের আর্দশ কারা ???
> ............................................. <

ইরানের যে সব মেয়েরা হিজাব পরে ফুটবল খেলে তারা ??
নাকি মালয়েশিযার হিজাব পরিহিতা বিমানবালা ??
নাকি নামমাত্র হিজাব পরে নারী পুরুষের
একসাথে কর্মরত নারীরা  ??
যারা বলেন,পর্দা করে সব করা যায় তারা সাধারনত
এই উধাহরণ গুলো পেশ করে থাকেন ।
আচ্ছা ,আল্লাহ পাক আমাদের যে রকম পর্দা করতে
বলেছেন এগুলো কি তারই নমুনা ??
পর্দা সংক্রান্ত কোরআনের আয়াত,হাদীস,সাহাবি,
নবী স্ত্রীদের জীবনি পর্যবেক্ষন করলে তো ভিন্নতা
পাওয়া যায়। আল্লাহ পাকের নির্দেশ তো নারীদের
গৃহের অভ্যন্তরে অবস্থান করা।”জাহীলিয়াতের নারীদের
মতো নিজেদের প্রর্দশন করো না “(আহযাব ঃ ৩৩ ) ।
তারপরও যারা প্রয়োজন বসত বাইরে বের হবে তারা
যেন পর্দাবৃত হয়ে বের হয়।
আমরা তো তাদেরই অনুসরন করব যারা দূনিয়াতেই
জান্নাতের সুসংবাদ প্রাপ্তা।আমাদের আর্দশ তো খাদীজা (রাঃ)
যিনি জান্নাতের চার শ্রেষ্ঠ নারীদের একজন।
হযরত ফাতিমা (রাঃ) যিনি জান্নাতি নারীদের সরদারীনি।
আমাদের আর্দশ তো হযরত আয়শা (রাঃ) যিনি জান্নাতেও
মুহাম্মাদ (সাঃ) এর স্ত্রী হবেন। আমরা যদি তাদের জীবনি
পর্যবেক্ষন করি তাহলে দেখা যাবে তারাই ছিলেন
প্রকৃত পর্দাশীল নারী।তারা গৃহে অবস্থান করতেন,
প্রয়োজন ব্যাতিত ঘর থেকে বের হতেন না, অন্ধদের
সামনে ও পর্দা করতেন, এমন কি মৃতদের সামনে ও
হিজাব করে আসতেন কিংবা না খেয়ে থাকলেও
জীবিকা উপার্জনের দোহায় দিয়ে পর্দার খিলাপ
করতেন না।উনারা দৃস্টির হেফাযাত করতেন,
কন্ঠস্বরের ও পর্দা করতেন। শুধু কি তাই !!
তারা ছিল উত্তম ইবাদত কারীনি।অধীক পরিমান
নামাজ পড়তেন,রোজা রাখতেন।
যা চাকুরীজীবি নারীদের পক্ষে সম্ভবই না। কখনও
কখনও তো ফরযটুকুও আদায় করতে পারে না।
অথচ,আল্লাহ পাক আমাদের সৃস্টিই করেছেন
তার ইবাদত করার জন্য।
এছাড়া ঘরে বাইরে সামলে স্বামী সন্তানের হক
কতটুকু আদায় করা যায় সে প্রশ্ন না হয় থাক।
অথচ,উম্মতের শ্রেষ্ঠ নারীরা ছিলেন ,
আর্দশ স্ত্রী, আর্দশ মা ।
যারা বলেন, হিজাব করে সব কিছই করা সম্ভব
তারা যদি জান্নাতের ব্যাপারে নিস্চয়তা দিতে
পারেন তবে না হয় আমরা তাদেরই অনুসরন
করব।কিন্তু তারা তো তা দিতে পারবে না
তাই না ?? সুতরাং ঐসব উধাহরন দিয়ে
লাভ কি ?? আমরা বরং তাদেরই অনুসরন করব
আল্লাহ পাক যাদের জান্নাতি করেছেন।

মহান রাব্বুল আলামিন আমাদের খাদীজা,
ফাতিমা,আয়শা (রাঃ) উনাদের উত্বস্বরী হয়ে ওঠার
তৌফিক দান করুন।

No comments:

Post a Comment

অফিস ॥ ৯২ আরামবাগ, ক্লাব মার্কেট, মতিঝিল। ই-মেইল ॥ banglaonlinetv24@gmail.com
প্রকাশক মোঃ রাসেল জাতীয় মানবাধিকার ইউনিটি রেজিঃ নং: ঢ_০৮৮৩৭
অনলাইন নিতীমালা মেনে আবেদন কৃত সম্পাদক॥ রাজু আহমেদ অনুমোদিত নাম্বার ০৫/৯৩১৭০২৬৫