[X]
loading...

রাষ্ট্রপতির ভাতিজি পরিচয়ে সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা কে দেখে নেয়ার হুমকি

সিলেট প্রতিনিধি :- সিলেট জেলার গোয়াইনঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকরতা বিশ্বজিত কুমার পালকে দেখে নেয়ার হুমকি দিয়েছেন নাসিমা আলম নামের এক মহিলা। নাসিমা নিজেকে রাষ্ট্রপতির ভাতিজি পরিচয় দিয়ে দির্ঘদিন থেকে এলাকায় অবৈধভাবে বালু উত্তোলন সহ  পাথর পাথর কোয়ারী গুলতে রাষ্ট্রপতির দাপট দেখিয়ে আসছেন। গতকাল রোববার বিকেলে গোয়াইনঘাট উপজেলার চেঙ্গেরখাল বালুমহাল থেকে সরকারী  ইজারা বহির্ভুতভাবে বালু উত্তোলনের দায়ে একটি নৌকাকে জরিমানা করা হলে জরিমাকে কেন্দ্র করে তিনি সরজমিনে উপস্থিত হয়ে কর্তব্যরত সরকারী কর্মকতাদের গালি গালাজ সহ হুমকি ধমকি দেন।

জানা যায়, গোয়াইনঘাট উপজেলার চেঙ্গেরখাল বালুমহাল গত এক বছর ধরে ইজারাবিহীন অবস্থায় রয়েছে। সেখান থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে খবর পেয়ে সিলেটের জেলা প্রশাসকের নির্দেশে অভিযানে যায় ভ্রাম্যমান আদালত। গোয়াইনঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিশ্বজিত কুমার পালের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে আরও উপস্থিত ছিলেন- নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ময়নুল হোসেন, সহকারি কমিশনার (ভূমি) সুমন চন্দ্র দাশ, সালুটিকর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর রাজি উল্যাহ এবং নন্দীরগাও ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুল হাসান আমিরুল। এসময় উপস্থিত জনসধানের সামনে বাকবিতণ্ডে অকত্য ভাষায় গালি গালাজ করেন এবং স্থানীয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কে দেখে নেয়ার হুমকি ধমকি দিতে থাকেন।
এক পর্যায়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা সহ দায়িত্বরত ম্যাজিস্ট্রেট জরিমানা উসল না করেই ফিরে আসতে বাধ্য হন।

এ নিয়ে স্থানীয় জনসধারনের মনে প্রশ্নে জেগেছে। তারা জানতে চান কে এই মহিলা?তিনি আধেও কি রাষ্ট্রপতি ভাতিজি কি না?
এই সকল প্রশ্নের উত্তর জানতে, সুষ্ট ব্যবস্থা নিতে সরকারী উর্ধতন কর্তৃকপক্ষের হস্থক্ষেপ কামনা করছেন।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

অফিস ॥ ৯২ আরামবাগ, ক্লাব মার্কেট, মতিঝিল। ই-মেইল ॥ banglaonlinetvnews@gmail.com
প্রকাশক মোঃ রাসেল জাতীয় মানবাধিকার ইউনিটি রেজিঃ নং: ঢ_০৮৮৩৭
অনলাইন নিতীমালা মেনে আবেদন কৃত সম্পাদক॥ রাজু আহমেদ অনুমোদিত নাম্বার ০৫/৯৩১৭০২৬৫