[X]
loading...

প্রেসব্রিফিং ঃ এ্যাড. রুহুল কবির রিজভী-সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব সুপ্রিয় সাংবাদিক ভাই ও বোনেরা,

প্রেসব্রিফিং ঃ এ্যাড. রুহুল কবির রিজভী-সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব সুপ্রিয় সাংবাদিক ভাই ও বোনেরা, আস্সালামু আলাইকুম। সবাইকে জানাচ্ছি আমার আন্তরিক শুভেচ্ছা ও কৃতজ্ঞতা। আপনারা জানেন, ‘গণতন্ত্রের মা’ দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে মিথ্যা মামলায় কারাবন্দি করে রাখা হয়েছে। এই পবিত্র মাহে রমজানে চরম অসুস্থ অবস্থায় প্রিজন সেলে দিনাতিপাত করছেন তিনি। সম্পূর্ণরুপে জুলুম করে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারাবন্দী করা হলেও দেশের মানুষের প্রত্যাশা ছিল মিডনাইট ভোটের সরকার দেশনেত্রীকে ঈদের আগেই মুক্তি দিবে। সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী লন্ডনে যা বলেছেন সেই প্রতিহিংসাই তিনি বাস্তবায়িত করছেন। এছাড়াও তাঁকে দেয়া ৩০ টাকার ইফতারী নিয়েও সরকারের দায়িত্বশীল মন্ত্রীরা উপহাস ও অহমিকা প্রকাশ করছেন। অন্যায়ভাবে একজন বন্দীকে নিপীড়ণ-নির্যাতন করে সেটি নিয়ে আবার ঠাট্টা তামাশা যারা করে তারা মানসিকভাবে বিকলাঙ্গ। তারা পাশবিক চেতনায় উদ্বুদ্ধ। গত এক দশকের বেশী সময় ধরে সম্পূর্ণ অবৈধভাবে বন্দুকের নলের মুখে ক্ষমতায় চেপে থাকা আওয়ামী লীগ অত্যন্ত সচেতন ও সুচতুরভাবে নীলনক্সা অনুযায়ী বিএনপিকে নিশ্চিহ্ন করার চেষ্টা করছে। তারা লক্ষ লক্ষ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়েছে, গ্রেফতার করেছে, খুন করেছে, অনেককে গুম করে দিয়েছে। আমাদের রাজনৈতিক কর্মকান্ডে বাধা দিচ্ছে। আইন আদালতকে কুক্ষিগত করে জামিন ও রায়ে প্রভাব বিস্তার করছে। সবদিক দিয়ে আমাদের কোনঠাসা করার চেষ্টা করা হচ্ছে। এমন দু:সহ প্রতিকুল পরিস্থিতির মধ্যেও বিএনপি তার সাংগঠনিক কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে। নেতাকর্মীরা সকল নির্যাতন-নিপীড়ণ সহ্য করার পরেও দু:শাসনের বিরুদ্ধে সোচ্চার রয়েছে। বিএনপি ধাবিত হচ্ছে তার কাঙ্খিত লক্ষ্যে। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান, আপামর মানুষের জনপ্রিয় পরীক্ষিত নেতা দেশনায়ক তারেক রহমান দলের সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে পরামর্শ করে সুপরিকল্পিত ও দূরদর্শী সিদ্ধান্তে দল পরিচালনা করছেন। তাদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করেই যেকোন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও কার্যকর করা হচ্ছে। তারেক রহমান বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনসমূহের সর্বস্তরের নেতাদের সঙ্গে প্রতিনিয়ত কথা বলছেন। জেলা নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় করছেন। তাদের যৌক্তিক পরামর্শ গ্রহণ করে বিভিন্ন জেলা-উপজেলা থেকে শুরু করে কেন্দ্রীয় কমিটিগুলো গঠনতান্ত্রিক ও গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় পূণর্গঠন ও সাংগঠনিক কার্যক্রম তত্ত্বাবধান করছেন। সারাদেশে কাউন্সিল হচ্ছে। জনাব তারেক রহমানের সুনিপুণ নির্দেশনায় সারাদেশে সাংগঠনিক কর্মকান্ডে এসেছে নতুন গতি। প্রাণাবেগে উজ্জীবিত হয়ে উঠছেন নেতা-কর্মীরা। দলে সৃষ্টি হচ্ছে ইস্পাত কঠিন সুদৃঢ় ঐক্য। গণতন্ত্র পূণ:রুদ্ধারের লড়াইয়ে প্রস্তুত হচ্ছেন সর্বস্তরের নেতা-কর্মী-সমর্থকরা। এই মূহুর্তে দলের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীদেরকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে ধৈর্য সহকারে সকল পরিস্থিতি মোকাবেলা করার জন্য দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জনাব তারেক রহমান আহবান জানিয়েছেন। যারা সাবেক রাষ্ট্রপতি শহীদ জিয়াউর রহমান বীর উত্তমকে ভালোবাসেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে ভালোবাসেন, দেশনায়ক তারেক রহমানের জন্য অধির আগ্রহে অপেক্ষা করছেন তাদের মধ্যে বিভ্রান্তি ছড়ানো যাবে না। দু:শাসনের বিরুদ্ধে ইস্পাতকঠিন ঐক্য নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। আমাদের লক্ষ্য একটাই-এদেশের গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার, ‘গণতন্ত্রের মা’ বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা, অগনিত নেতাকর্মী যারা গ্রেফতার হয়েছেন তাদেরকে মুক্ত করা এবং এই দুঃশাসনের অবসান ঘটানো। আমাদের দলের নেতা-কর্মীরা জানেন, লক্ষ্যে পৌঁছাতে হলে বাধা-বিপত্তি আসবেই। বাধা-বিপত্তিকে অতিক্রম করে আমাদেরকে শিড়দাঁড়া সোজা করে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে। যদিও সন্ধ্যা আসে মন্দ মন্থরে তবুও আমরা পাখা বন্ধ করবো না। কালো রাত্রি অতিক্রম করে নব সূর্যোদয়ের আলো ফুটবেই। গণতন্ত্রের সংগ্রামের যেসব লড়াই, সেই লড়াইয়ে আমরা লড়ব। আমরা অবশ্যই গণতন্ত্রের কুলে গিয়ে পোঁছাতে পারবো, বহুত্ববাদ ও সুশাসনের নীড়ে গিয়ে পৌঁছাতে পারবো। বিএনপি বিভেদ-বিভাজনে, হতাশায় বিশ্বাস করে না। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও দেশনায়ক তারেক রহমানের নেতৃত্বে গণতন্তের শুভদিন বিএনপি ফিরিয়ে আনবেই। মানুষ ফিরে পাবে তার নাগরিক স্বাধীনতা। দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব হবে আরও শক্তিশালী। শহীদ জিয়ার চিন্তা ও আদর্শ, বহুদলীয় গণতন্ত্র বেগম খালেদা জিয়ার আপোষহীন নেতৃত্ব এবং তারেক রহমানের প্রত্যয়দৃঢ় নেতৃত্বে পূণ:প্রতিষ্ঠা হবেই, চলমান গণতান্ত্রিক আন্দোলন ব্যর্থ হওয়ার নয়। কোন বাধা-বিপত্তি-প্রতিবন্ধকতা-উস্কানীমুলক কথাবার্তা, কোন ষড়যন্ত্র আমাদের রুখতে পারবে না। বর্তমান শ্বাসরোধী দু:শাসনের অবসান হবেই। অবশ্যই বিএনপি’র নেতৃত্বে রাষ্ট্রের প্রকৃত বহুদলীয় গণতন্ত্র পূণ:রুদ্ধার হবেই। বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধারের আন্দোলন সফল হবে ইনশাল্লাহ। সুহৃদ সাংবাদিকবৃন্দ, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন-এবার ঈদে যাত্রীদের দূর্ভোগ হবে না, সড়ক মহাসড়কের অবস্থা ভাল তবে সড়কে শৃঙ্খলা নেই। কাদের সাহেব আরো বলেছেন, বাংলাদেশের ইতিহাসে বর্তমানে সড়কের অবস্থা সবচেয়ে ভাল। জনাব কাদেরের বক্তব্য জনগণের সাথে চরম রসিকতা। সড়ক ব্যবস্থা এতটাই ভাল যে, শুধু ঢাকার অদুরে গাজীপুর যেতে সময় লাগে কমপক্ষে ৪ থেকে ৫ ঘন্টা। উত্তরাঞ্চলের অবস্থা আরও নাজুক। তাছাড়া ঢাকা থেকে টাঙ্গাইল হয়ে উত্তরের জেলাগুলোর যোগাযোগ ব্যবস্থা এতই খারাপ যে, উত্তরাঞ্চলের যাত্রীদেরকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে দীর্ঘদিন ধরে। ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক, ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক, ঢাকা-কুষ্টিয়াসহ দেশের সকল সড়ক মহাসড়কগুলোতে বেহাল অবস্থা বিরাজ করছে। সড়কের বেহাল দশার কারণে ঈদে ঘরমুখী মানুষ ঝুঁকছে ট্রেনের দিকে। গতকাল শুরুর দিনে ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয় দেখা দিয়েছে। সকালের ট্রেন বিকেলেও পাওয়া যায়নি। রেলমন্ত্রী এজন্য জাতির নিকট দু:খ প্রকাশও করেছেন। লঞ্চ টার্মিনালগুলো থেকেও লঞ্চ ছাড়ছে দেরী করে। লঞ্চযাত্রীদের কাছ থেকে আদায় করা হচ্ছে অতিরিক্ত ভাড়া, বাস যাত্রীদের কাছ থেকেও আদায় করা হয়েছে অতিরিক্ত ভাড়া। ঈদ যাত্রার শুরুতেই চরম দুর্ভোগে পড়েছে মানুষ। কথায় আছে-কয়লা ধুলেও ময়লা যায় না, আওয়ামী লীগের নেতাদের অবস্থাও তাই। মানুষের প্রত্যাশা ছিল সুস্থ হয়ে ফিরে জনগণের পাশে দাঁড়াবেন, কিন্তু মানুষের দুর্ভোগ নিয়েও পরিহাস করার চিরচেনা স্বভাব তিনি ছাড়তে পারেননি। ধন্যবাদ সবাইকে। আল্লাহ হাফেজ।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

অফিস ॥ ৯২ আরামবাগ, ক্লাব মার্কেট, মতিঝিল। ই-মেইল ॥ banglaonlinetvnews@gmail.com
প্রকাশক মোঃ রাসেল জাতীয় মানবাধিকার ইউনিটি রেজিঃ নং: ঢ_০৮৮৩৭
অনলাইন নিতীমালা মেনে আবেদন কৃত সম্পাদক॥ রাজু আহমেদ অনুমোদিত নাম্বার ০৫/৯৩১৭০২৬৫