[X]
loading...

যতোদিন বাঁচি “ভালো মানুষের সাথী হয়ে বাঁচতে চায়” জেল হত্যা দিবসে.... শেখ আফিল উদ্দিন এমপি

শেখ কাজিম উদ্দিন : যশোর-১(শার্শা) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব শেখ আফিল উদ্দিন বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাগ্রতবস্থায় স্বপ্ন দেখতেন এদেশকে সোনার বাংলাদেশ তৈরি করতে হবে। তিনি ঘুমন্তবস্থায় দুঃস্বপ্ন দেখেননি। এদেশের মানুষের মধ্যে শক্তি সঞ্চার করে পাকিস্তানি শাসক বাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে আমাদেরকে স্বাধীন বাংলাদেশ উপহার দিয়েছিলেন। সেখানেই ক্ষান্ত হননি। স্বাধীনতার পরবর্তী সময়ে যুদ্ধবিদ্ধস্থ্য দেশের মানুষের মুখে হাসি ফোটানোর লক্ষ্য নিয়ে অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান, চিকিৎসা সেবাসহ শিক্ষা ব্যবস্থা নিশ্চিতকরণের মধ্য দিয়ে মৃত্যুর পূর্বমুহুর্ত পর্যন্ত কাজ করছিলেন। তারপরেও এই বাঙালী জাতির কিছু কুলাঙ্গারের দল জাতির জনকের মতো এক মহামানবকে সপরিবারে নির্মমভাবে হত্যার মধ্য দিয়ে বিশ্বের ইতিহাসে এক কালো অধ্যায়ের সূচনা করেছিল। রবিবার বেলা ১২টার সময় শার্শা উপজেলা আওয়ামীলীগের আয়োজনে অনুষ্ঠিত জাতিয় জেল হত্যা দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে একথাগুলি বললেন তিনি।

শার্শা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক মঞ্জুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব নুরুজ্জামানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে শেখ আফিল উদ্দিন এমপি আরো বলেন, ১৯৭৫ সালের ৩-রা নভেম্বর বাঙালি জাতির ইতিহাসে আরেকটি কলঙ্কময় অধ্যায় ও বেদনাবিধুর দিন। এই দিনে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দী অবস্থায় গুলি করে ও বেয়োনেট দিয়ে খুঁচিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করা হয় বঙ্গবন্ধুর আজীবন রাজনৈতিক সহোচর “জাতীয় চার নেতা” বাংলাদেশের প্রথম অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম, প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদ, মন্ত্রিসভার সদস্য ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলী এবং এ এইচ এম কামারুজ্জামানকে। এই নির্মম ঘটনার মাত্র আড়াই মাস আগে একই বছরের ১৫ আগস্ট বাংলাদেশের স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা করা হয়।

এসময় সাংসদ শেখ আফিল উদ্দিন প্রধান মন্ত্রীর মাদক ও দূর্ণীতি বিরোধী সুদ্ধি অভিযানকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করতে হলে সবার আগে প্রয়োজন আমাদের সমাজ ব্যবস্থার আমূল পরিবর্তণ করা। যেখানে থাকবেনা মাদক, থাকবেনা দূর্ণীতি। কে আওয়ামীলীগ, কে যুবলীগ, কে ছাত্রলীগ, কে বিএনপি, কে জামায়াত, কে রাষ্ট্রের খুবই শক্তিশালী ব্যক্তি বা নেতা। যেখানেই দূর্ণীতি, সেখানেই শক্ত হাতে প্রতিরোধ করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যা অবাক বিষ্ময়ে দেখছেন দেশসহ বিশ্ববাসী।  তাই, পূর্বেও বলেছি, এখনও বলছি। শার্শা উপজেলার কোন প্রান্তে মাদকের কারবারসহ কোন ধরণের দূর্নীতি করতে দেবনা। এসময় তিনি স্থানীয় জন প্রতিনিধি, আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ সকল সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের হুশিয়ারি দিয়ে বলেন, এখন থেকে শার্শা উপজেলার যে প্রান্ত দিয়ে মাদকের কারবার হবে, সে এলাকার জনপ্রতিনিধিসহ দলীয় নেতৃবৃন্দদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সঙ্গেসঙ্গে আওয়ামীলীগ থেকে চিরতরে বহিস্কার করে দেওয়া হবে। এসাথে তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ মাদকের হোক আর দূর্ণিতীর হোক, তাকে আইনের আওতায় এনে উপর্যপরি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এসময় তিনি মাদক কারবারী ও দূর্ণীতিবাজদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেন। বলেন, যতোদিন বাঁচি “ভালো মানুষের সাথী হয়ে বাঁচতে চায়”।

উক্ত সময়ে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শার্শা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পূলক কুমার মন্ডল, শার্শা উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ¦ সালেহ আহমেদ মিন্টু, যুগ্ম সম্পাদক ও যশোর জেলা পরিষদের সদস্য অধ্যক্ষ ইব্রাহিম খলিল, বেনাপোল পৌর আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ্ব এনামুল হক মুকুল, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব নাসির উদ্দিন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদি হাসান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আলেয়া ফেরদৌস, শার্শা সদর ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সোহরাব হোসেন, উলাশী ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ আয়নাল হক, নিজামপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, ডিহি ইউপি চেয়ারম্যান হোসেন আলী, বাগআঁচড়া ইউপি চেয়ারম্যান ইলিয়াছ কবির বকুল, কায়বা ইউপি চেয়ারম্যান হাসান ফিরোজ আহমেদ টিংকু, গোগা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ, লক্ষণপুর ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ারা বেগম, বেনাপোল ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব বজলুর রহমান, পুটখালী ইউপি চেয়ারম্যান হাদিউজ্জামান, বাহাদুরপুর ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুর রহিম সরদারসহ স্থানীয় আওয়ামীলীগের সকল সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। 

এসময় জাতির জনক বঙ্গবন্ধুসহ তাঁর পরিবার ও জাতিয় ৪ নেতার আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া করা হয়।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

অফিস ॥ ৯২ আরামবাগ, ক্লাব মার্কেট, মতিঝিল। ই-মেইল ॥ banglaonlinetvnews@gmail.com
প্রকাশক মোঃ রাসেল জাতীয় মানবাধিকার ইউনিটি রেজিঃ নং: ঢ_০৮৮৩৭
অনলাইন নিতীমালা মেনে আবেদন কৃত সম্পাদক॥ রাজু আহমেদ অনুমোদিত নাম্বার ০৫/৯৩১৭০২৬৫