ভারতের প্রধানমন্ত্রীর ডাকা 'জনতার কার্ফু’র কারনে আজ বেনাপোল-পেট্রাপোল বন্দরের আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য বন্ধ

শেখ কাজিম উদ্দিন : করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখে দিতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ডাকা 'জনতার কার্ফু’র কারনে আজ বেনাপোল-পেট্রাপোল বন্দরের আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য বন্ধ ছিল। তবে, পাসপোর্ট যাত্রী যাতায়াত স্বাভাবিক ছিল।

ভারতের পেট্রাপোল সিএন্ডএফ এজেন্ট স্টাফ ওয়েল ফেয়ার এসোসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক কার্তিক চক্রবর্তী বলেন, করোনা সংক্রমণ রুখে দিতে আজ রোববার সকাল ৭টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত গোটা ভারত জুড়ে জনতার কার্ফু’র কারণে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য বন্ধ থাকে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বৃহস্পতিবার করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখে দিতে জনতার কাছে প্রথম পর্যায়ে ১৪ ঘণ্টা স্বেচ্ছায় ঘর বন্দি থাকার আবেদন জানিয়েছিলেন। আর এ কারনেই রবিবার সকাল ৭টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যের সাথে সম্পৃক্ত সকল সিঅ্যান্ডএফ মালিক, কর্মচারী, হ্যান্ডলিং শ্রমিক ও ট্রান্সপোর্ট শ্রমিকরা স্বেচ্ছায় ঘর বন্দি থাকে। যে কারণে দু'দেশের বন্দরের মধ্যে আমদানি-রপ্তানি বানিজ্য বন্ধ হয়ে যায়। তবে সোমবার সকাল থেকে পূনরায় আমদানি বাণিজ্য চলবে বলেও জানান তিনি।

এ বিষয়ে বেনাপোল কাস্টমস হাউসের কার্গো শাখার কর্মকর্তা নাসিদুল হক বলেন, ভারতের অভ্যন্তরে কারফিউ জারি করায় রবিবার সকাল থেকে কোনো পণ্যবাহী ট্রাক বেনাপোল বন্দরে প্রবেশ করেনি। বেনাপোল বন্দর থেকেও কোনো রপ্তানি পণ্যবাহী ট্রাক ভারতে যেতে পারেনি। তবে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ থাকলেও বেনাপোল বন্দর ও কাস্টমসের অন্যান্য সকল কার্যক্রম সচল থাকে।

এ বিষয়ে বেনাপোল ইমিগ্রেশনের পুলিশ পরিদর্শক(ওসি তদন্ত) মহসিন খান বলেন রবিবার দিনব্যাপী ভারতে কারফিউ থাকায় আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য বন্ধ থাকলেও পাসপোর্ট যাত্রী চলাচল স্বাভাবিক ছিল।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

[X]
loading...
অফিস ॥ ৯২ আরামবাগ, ক্লাব মার্কেট, মতিঝিল। ই-মেইল ॥ banglaonlinetvnews@gmail.com
প্রকাশক মোঃ রাসেল জাতীয় মানবাধিকার ইউনিটি রেজিঃ নং: ঢ_০৮৮৩৭
অনলাইন নিতীমালা মেনে আবেদন কৃত সম্পাদক॥ রাজু আহমেদ অনুমোদিত নাম্বার ০৫/৯৩১৭০২৬৫