প্রশাসনের হস্তক্ষেপে ভারত থেকে ফিরে আসা ৪৪ জন বেনাপোল কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে

শেখ কাজিম উদ্দিন : অবশেষে ভারত থেকে ফিরে আসা ৪৪ বাংলাদেশিকে বেনাপোল পৌর বিয়ে বাড়িতে স্থাপিত কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রাখা হয়েছে। সোমবার (০৬ এপ্রিল) দুপুরে তারা ভারতের পেট্রপোল বন্দর হয়ে বেনাপোল ইমিগ্রেশনে আসলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের নির্দেশনা মোতাবেক ইমিগ্রেশনের কার্যাদি ও স্বাস্থ্য কেন্দ্রের পরীক্ষা শেষে তাদেরকে ১৪ দিনের জন্য এ কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রাখা হয়। এদের মধ্যে ২৬ জন পুরষ ১৭ জন নারী ও একজন শিশু। এদের বাড়ি দেশের বিভিন্ন জেলায়।


ফেরত আসা বাংলাদেশিরা ভারতের বিভিন্ন এলাকায় চিকিৎসা, ব্যবসা ও বেড়ানোর কাজ শেষ করে বিশ্বজুড়ে মহামারী করোনা ভাইরাসের কারণে লকডাউনের ভিতর আটকে যায়। পরে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের নির্দেশনা মোতাবেক তাদেরকে স্বদেশে ফিরিয়ে এনে বেনাপোলে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন সেন্টার স্থাপন পূর্বক ১৪ দিন রাখার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। পরে সোমবার সকালে যশোর জেলা প্রশাসক মোহাম্মাদ সফিউল আরিফ এঁর নেতৃত্বে বিভিন্ন দপ্তরের একঝাঁক প্রশাসনিক কর্মকর্তা প্রাতিষ্ঠানিক কয়েকটি ভবন পরিদর্শন করেন কোয়ারেন্টাইন সেন্টার হিসেবে ব্যবহারের জন্য।

এসময় বেনাপোল পৌর বিয়ে বাড়ি নামক কমিউনিটি সেন্টার, বেনাপোল আন্তর্জাতিক ট্রাক টার্মিনাল ও বাস টার্মিনাল পরিদর্শন করলে বেনাপোলবাসীর মধ্যে এক অজানা আতঙ্ক বিরাজ করে। করোনা ভাইরাস যাতে এলাকায় প্রবেশ করতে না পারে সেজন্য তারা এসকল এলাকায় জনমত সৃষ্টি করে বেনাপোলে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার না করার জন্য। অবশেষে  প্রশাসনের দক্ষ কর্মকর্তারা স্থানীয়দের বোঝাতে সক্ষম হলে ভারত থেকে ফেরা ৪৪ জনের ঠাঁই হয় বেনাপোল পৌর বিয়ে বাড়ি নামক কমিউনিটি সেন্টারে। দুপুর ২ টার সময় তাদেরকে শার্শা উপজেলার চৌকস নির্বাহী কর্মকর্তা পূলক কুমার মন্ডল ও বেনাপোল পোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মামুন খান জীবনের ঝুকি নিয়ে তাদেরকে বেনাপোল ইমিগ্রেশন থেকে এ্যামবুলেন্সযোগে পৌর বিয়ে বাড়ির কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে নিয়ে আসেন। তাদের সার্বিক খোজ খবর নেন এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।

মরণঘাতী করোনা ভাইরাসকে উপেক্ষা করে দিনব্যাপী উপস্থিত থেকে ফেরত আসাদের দেখভালসহ প্রয়োজনীয় সেবাদানে কাজ করেন যশোর জেলা প্রশাসক শফিউল আরিফ, পুলিশের এডিশনাল এসপি(প্রশাসন এ্যাডমিন) সালাউদ্দিন সিকদার, সার্কেল এএসপি জুয়েল ইমরান, ৪৯ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক( সিও) লে. কর্ণেল সেলিম রেজা, শার্শা উপজেলা সহকারি কর্মকর্তা(ভূমি) খোরশেদ আলম চৌধূরী, ৪৯ বিজিবি ব্যাটালিয়নের মেজর নজরুল ইসলাম, যশোর জেলা আনছার এ্যাডজুটেন্ট লুৎফর রহমান, শার্শা উপজেলার আনছার অধিনায়ক হেলাল উদ্দিনসহ ডাক্তার, সেনাবাহিনী, পুলিশ, বিজিবি, ফায়ারসার্ভিস, আনছার ও স্থানীয় সংবাদকর্মীরা। 

এসময় যশোর জেলা সিভিল সার্জন শেখ আবু শাহিন বলেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের নির্দেশনা মোতাবেক  এখন থেকে যারা ভারত হতে ফিরবেন তাদের সবাইকে ১৪ দিনের জন্য বেনাপোলের বিভিন্ন প্রাথিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রাখা হবে। তাদের শারীরিক দেখভাল করবেন স্বাস্থ্য কর্মীরা। এখানে ভয়ের কিছু নাই। যাদেরকে রাখা হচ্ছে তারা সবাই স্বুস্থ্য। তবে কেউ আক্রান্ত হলে তার নমুনা সংগ্রহ করে উন্নত চিকিৎসার জন্য এখান থেকে নিয়ে যাব।

এ বিষয়ে বেনাপোল ইমিগ্রেশন অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আহসান কবির বলেন ৪৪ জন বাংলাদেশী নাগরীক ভারত থেকে পাসপোর্টের মাধ্যমে দেশে ফেরত আসায় তাদেরকে ইমিগ্রেশনের আনুষ্ঠানিকতা ও স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে থাকার জন্য শার্শা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।


এ বিষয়ে শার্শা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পূলক কুমার মন্ডল বলেন, যারা ভারত থেকে আসবে তাদেরকে প্রাথমিক ভাবে স্বাস্থ্য ঝুকি এড়াতে ১৪ দিন বেনাপোল কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রাখা হবে। এরমধ্যে তাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষায় করোনা ভাইরাসের আলামত পাওয়া গেলে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকাসহ বিভিন্ন চিকিৎসালয়ে নেওয়া হবে। এরমধ্যে তাদের খাবার ও চিকিৎসা ব্যবস্থা উপজেলা থেকে ব্যায় করা  হবে।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

[X]
loading...
অফিস ॥ ৯২ আরামবাগ, ক্লাব মার্কেট, মতিঝিল। ই-মেইল ॥ banglaonlinetvnews@gmail.com
প্রকাশক মোঃ রাসেল জাতীয় মানবাধিকার ইউনিটি রেজিঃ নং: ঢ_০৮৮৩৭
অনলাইন নিতীমালা মেনে আবেদন কৃত সম্পাদক॥ রাজু আহমেদ অনুমোদিত নাম্বার ০৫/৯৩১৭০২৬৫