আলোকিত দুই নারী

**************অালোকিত দুই নারী************


প্রশাসন ,সমাজ, দেশ, রাজনীতি,,উদ্যোক্তা ও উন্নয়ন সকল ক্ষেত্রে নারীরা পিছিয়ে নেই। বর্তমান জগৎ সংসারে নারীরা সকল প্রতিকূলতার সাথে সংগ্রাম করে সমান তালে এগিয়ে যাচ্ছে, তারাও জানান দিচ্ছে আমরাও পারি। মুনতাসির জাহান ---------------- রামগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা । তিনি ২০১৩ সালের ৩১তম বিসিএস(প্রশাসন) ক্যাডারে মনোনীত হয়ে নেত্রকোনা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) হিসাবে সরকারী প্রশাসনিক কর্মকর্তা হিসাবে কর্মজীবন শুরু করেন এবং পদায়ন পেয়ে ২০১৯ সালে ২৪জুলাই রামগঞ্জ উপজেলায় যোগদান করেন। কর্মক্ষেত্রে সততা, ন্যায়, নিষ্ঠা, যোগ্যতা ও সুনামের সহিত দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করেন। তিনি অল্প সময়ের মধ্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কার্যালয়কে অাধুনিকায়ন ও উপজেলার বিভিন্ন বিভাগ ঢেলে সাজিয়ে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার মধ্যে নিয়ে অাসে। চলমান মহামারি করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় দিনরাত কঠোর পরিশ্রম করেন। এ সময় তিনি গরীব-অসহায় ও মধ্যবিত্ত পরিবারকে সহযোগিতা করেন, দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি রোধে ভ্রাম্যমান অাদালত পরিচালনসহ কার্যকর প্রচেষ্টা করেন এবং টেকসই উন্নয়নে পরিদর্শন ও পর্যবেক্ষণ অব্যাহত রাখেন। এ ছাড়া মানবিক কাজ অব্যাহত রাখেন।ফলে রামগঞ্জ উপজেলা দেশের অন্যান্য উপজেলা থেকে অনেকাংশে ভাল অাছে। তিনি রামগঞ্জের মানুষের মাঝে সব সময় একজন সৎ, মানবিক ও যোগ্যতম নির্বাহী কর্মকর্তা হিসাবে উদাহরন হয়ে থাকবেন। তাঁর বদলীর অাদেশ রামগঞ্জের মানুষের মেনে কষ্ট হচ্ছে। যা এ যাবতকালে রামগঞ্জে দায়িত্বরপালনকারী কোন নির্বাহী কর্মকর্তার ক্ষেত্রে এমন হয়নি। মুনতাসির জাহানের বাড়ি চট্রগ্রামের ফটিকছড়িতে। তাঁর পিতা ছিলেন একজন মুক্তিযোদ্ধা, ভাইবোন সবাই উচ্চ শিক্ষিত এবং প্রতিষ্ঠিত। তিনি রত্নগর্ভা মায়ের সন্তান। সুরাইয়া আক্তার শিউলী ---------------- সংগ্রামী এ নারী রামগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান। রাজনৈতিক জীবনে রামগঞ্জ উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও লক্ষ্মীপুর জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি রামগঞ্জ জিয়াউল হক স্কুল এন্ড কলেজের সভাপতি । নারীদের উন্নয়নে ’কান্তা নারী উন্নয়ন সংস্থা’ ও ’রামগঞ্জ নারী উন্নয়ন ফোরাম’ এ দুইটি সামাজিক সংগঠন প্রতিষ্ঠা সভাপতি ।জনপ্রতিনিধি,সমাজসেবক,শিক্ষানুরাগী, সাংস্কৃতিক, শিক্ষিকা ও সুবক্তা হিসেবে তিনি সফল নারী। এ ছাড়াও তিনি রামগঞ্জ ডায়াবেটিক সমিতি সদস্য, মানবাধিকার সংস্থা রামগঞ্জ শাখার সভাপতি, জেলা নারী উন্নয়ন ফোরামের সভাপতি, লক্ষ্মীপুর জেলা জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতিকর প্রভাব মোকাবিলায় উপকুলীয় এলাকার বনায়ন প্রকল্পের উপদেষ্টা সভাপতি, রামগঞ্জ উপজেলা কমিউনিটি পুলিশিং সেলের উপদেষ্টা, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদের সদস্য, রামগঞ্জ উপজেলা সমাজ কল্যান পরিষদের অর্থ কমিটির সদস্যসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন ও প্রতিষ্ঠানের জন্য একজন নিবেদিত প্রান। তাঁর এসব কর্মের স্বীকৃতি হিসাবে মাদার তেরেসা পদক. উদিয়মান বাংলাদেশের পক্ষ থেকে সন্মাননা পদক, কবি নজরুল গোল্ড এ্যাডওয়ার্ড সহ বহু সম্মাননা পদক লাভ করেন। তিনি ২ ফেব্রুয়ারী ১৯৭৪ সালে রামগঞ্জ উপজেলার ভাটরা ইউনিয়নের দল্টা গ্রামে। পিতা ছাখাওয়াত হোসেন একজন মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন, মাতা রহিমা বেগম, স্বামী আবুল কাশেম মাষ্টার উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি। সংসার জীবনে তিনি ১মেয়ে ও ২ ছেলের জননী। বড় ছেলে স্নাতক পাশ করে ব্যবসা করছে. ছোট ছেলে ও মেয়ে মেডিকেল কলেজে অধ্যয়নরত।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

[X]
অফিস ॥ ৯২ আরামবাগ, ক্লাব মার্কেট, মতিঝিল। ই-মেইল ॥ banglaonlinetvnews@gmail.com
প্রকাশক মোঃ রাসেল জাতীয় মানবাধিকার ইউনিটি রেজিঃ নং: ঢ_০৮৮৩৭
অনলাইন নিতীমালা মেনে আবেদন কৃত সম্পাদক॥ রাজু আহমেদ অনুমোদিত নাম্বার ০৫/৯৩১৭০২৬৫