ভারতে পাচারের শিকার ৮ নারী বেনাপোল দিয়ে স্বদেশে

শেখ কাজিম উদ্দিন ::
  দীর্ঘদিন ভারতের জেলাখানায় সাজাভোগের পর বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে স্বদেশে ফিরেছে ভাল কাজের প্রলোভনে পাচারের শিকার ৮ নারী। সোমবার বিকেলে ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে তাদেরকে বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে।


ফেরত আসা নারীরা হলো, খাগড়াছড়ি জেলার আব্দুল বাতেন এর মেয়ে হাজরা খাতুন, যশোর জেলার মনিরামপুরের আব্দুর রহমানের মেয়ে ছালমা খাতুন, বেনাপোলের আইয়ুব আলীর মেয়ে হাজিরা খাতুন, শেখহাটির শওকত আলী বিশ্বাসের মেয়ে মাজেদা খাতুন, নারানগঞ্জ জেলার আব্দুল আজিজের মেয়ে সেলিনা বেগম, চুয়াডাঙ্গা জেলার রতন মন্ডলের মেয়ে রুশিয়া মন্ডল, পটুয়াখালী জেলার হাকিম হাওলাদারের মেয়ে রেখা বেগম ও মাগুরা জেলার তরফ বিশ্বাসের মেয়ে রিয়া বিশ্বাস(১২)। এদের ৭ জনের বয়স ২৫ থেকে ৩৫ বছরের মধ্যে।

বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের পরিদর্শক মহাসিন উদ্দীন জানান, ফেরত আসা নারীদের ইমিগ্রেশন কার্যক্রম শেষে পোর্ট থানায় সোপর্দ করা হলে সেখান থেকে রাইটস যশোর ও জাস্টিস এন্ড কেয়ার নামে দুটি এনজিও সংস্থা তাদেরকে গ্রহন করেছে নিজ নিজ আত্মীয় স্বজনের কাছে হস্তান্তর করার জন্য।

জাস্টিস এন্ড কেয়ারের যশোর শাখার প্রোগ্রামার অফিসার শাওমি সুলতানা জানান, সংসারে অভাব অনটনের সুযোগ নিয়ে পাচারকারীরা ভাল কাজের প্রলোভনে এদেরকে ভারতে পাচার করে। পরে সেখানে নিয়ে বিভিন্ন ঝুকি মুলক কাজে ব্যবহার করে। খবর পেয়ে ভারতীয় পুলিশ তাদেরকে মোম্বাই শহর থেকে আটক করে আদালতে প্রেরণ করে। কারাগারে প্রায় ২ বছর সাজাভোগ শেষে সেখানকার আর জেড নামে একটি এনজিও সংস্থা তাদেরকে নিজেদের শেল্টার হোমে রাখে। সেখান থেকে দু’দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দেওয়া ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে তাদেরকে স্বদেশে ফেরত নিয়ে আসা হয়।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

অফিস ॥ ৯২ আরামবাগ, ক্লাব মার্কেট, মতিঝিল। ই-মেইল ॥ banglaonlinetvnews@gmail.com
প্রকাশক মোঃ রাসেল জাতীয় মানবাধিকার ইউনিটি রেজিঃ নং: ঢ_০৮৮৩৭
অনলাইন নিতীমালা মেনে আবেদন কৃত সম্পাদক॥ রাজু আহমেদ অনুমোদিত নাম্বার ০৫/৯৩১৭০২৬৫